khabor.com, KHABOR.COM, khabor, news, bangladesh, shongbad, খবর, সংবাদ, বাংলাদেশ, বার্তা, বাংলা

ঢাকার তারকা সাংবাদিকদের পদভারে মুখর নিউ ইয়র্ক

0 57
 
আকবর হায়দার কিরন
আমেরিকার ঐতিহাসিক নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ঢাকা সহ বিভিন্ন শহর থেকে নিউ ইয়র্ক এসেছেন দেশের অনেক খ্যাতনামা সাংবাদিক। নিউ ইয়র্কের বাংলা গনমাধ্যম এর সদস্যরাও খুব ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন নিজেদের জন্যে নির্বাচন কভার করতে এবং দেশ থেকে আসা বন্ধুদের সম্ভ্যাব্য ক্ষেত্রে সকল সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে। এখানে এমন সাংবাদিকও আছেন যিনি ঢাকা থেকে আসা সহকর্মীদের জন্যে একদিন দুইদিন নয়, টানা কয়েক সপ্তাহ সকল কাজ বন্ধ করে সারাক্ষন সময় দেন। যার জলন্ত উদাহরন সবার প্রিয় এবং প্রবাসের সেরা ফটো সাংবাদিক নিহার দিদ্দিকী।bb5bb6
এই মুহূর্তেও নিউ ইয়র্ক অবস্থান করছেন ঢাকা এবং বার্লিন থেকে থেকে আসা স্বনামধন্য কয়েকজন। নাজমুন নেসা পিয়ারি যেন সারা বছরই ঢাকা- বার্লিন -নিউ ইয়র্ক কোলকাতা করে বেড়ান। আমেরিকার নির্বাচন কভার করার পর আরও অনেক কাজ নিয়ে খুব ব্যস্ত ছিলেন দেশের ডাকসাইটে  টিভি অ্যাংকর ফারজানা রুপা। তিনি আজকাল এর ভেতর ফিরে যাচ্ছেন। মাহমুদ মেনন নির্বাচন কভার করে দ্রুত ফিরে গেছেন কর্ম ব্যস্ততার কারনে। বিবিসি বাংলা বিভাগ এর মাসুদ হাসান খান বিভিন্ন শহরে ঘুরে ঘুরে ইতি টানেন নিউ ইয়র্কে। অনেকের মতেই আমেরিকা সফরে এসে নিউ ইয়র্ক এবং জ্যাকসন হাইটস না এলে সফর পরিপূর্ণ হয়না।bb
মাসুদ হাসান খান নিউ ইয়র্ক অবস্থান কালে সাউথ এশিয়ান মিউজিক সোসাইটি স্টুডিও থেকে আমেরিকার নির্বাচন পরবর্তী বিষয় নিয়ে একঘন্টার যে ফেসবুক লাইভ  করেন তার ভিউয়ারের সংখ্যা ইতিমধ্যে মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। এই লাইভ আলাপচারিতায় আমার সাথে আরও যোগ দেন সাংবাদিক নিহার সিদ্দিকী, এক্টিভিস্ট মিনহাজ আহমেদ এবং গনমাধ্যম কর্মী আবিদ রহমান।bb1bb2
সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে পড়াশুনো শেষ করে এক সময়ের তুখোড় সাংবাদিক, এখন নিউ ইয়রকার  পরসিয়া সুলতানা প্রিমিয়াম রেস্তরায় সফররত বন্ধুদের নিয়ে যে আড্ডার আয়োজন করেন তা চলে একটানা ৬ ঘন্টা। অনেকটা ইতিহাস সৃষ্টিকারী সেই আলোচনায় আমাদের সাথে আরও যোগ দেন মাহমুদ মেনন, সুলতানা রহমান পুতুল, ফরিদা ইয়াসমিন, গোধুলী খান, মনোয়ারুল ইসলাম, মনিজা রহমান, নিহার সিদ্দিকী, মিনহাজ আহমেদ, জাকির খান, জাহেদ শরীফও শিল্পী জাবেদ ইকবাল।bb12
এরপরের আড্ডা ঢাকা গার্ডেনে যাতে যোগ দেন ফারজানা রুপা, মাসুদ হাসান খান , মনিজা রহমান, নিহার সিদ্দিকী এবং আবিদ রহমান। আরেকটি আড্ডা হয় দোসা ডাইনারে যাতে আমার সাথে রুপা, এবং নিহার ছাড়াও যোগ দেন নেপালের বিখ্যাত টিভি হোস্ট মাম্পি ঘোষ।  ভিওএ ওয়াশিংটন থেকে আমাদের প্রিয় ফকির সেলিম ( নিউজ পড়তে গিয়ে এখন তাঁকে অবশ্য সেলিম হোসেন বলতে হয় ) সহ  নির্বাচনের রাতে   আমি, নিহার ও আবিদ খুব ব্যস্ত সময় কাটাই হিলারির নির্বাচনী হেড কোয়ার্টার জেভিটস সেন্টারে। সারা বিশ্বের কয়েক হাজার সাংবাদিকের পাশাপাশি দাঁড়িয়ে ভিওএ লাইভে রোকেয়া হায়দার আপার সাথে সরাসরি অংশগ্রহন, কিরন টভি লাইভ ইত্যাদি নিয়ে কিযে ব্যস্ত সময় কাটিয়েছি সেদিন।bb4
জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনে নতুন প্রেস সচিব হিসেবে যোগ দেয়া নুর এলাহি মিনাকে পরিচয় করিয়ে দিতে রাস্ট্রদুত মাসুদ বিন মোমেন যে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন তাতে নির্বাচন কভার করতে ঢাকা থেকে আসা অনেকেই যোগ দেন। জ ই মামুন ভাইকে দুস্টামি করে বলি ‘ আমি হোলাম আপনার ফেসবুক বন্ধু’ ফাহমিদা হায়দার সোমার চাচা।bb10
নির্বাচন শেষে হাট বাজার পার্টি হলে সাংবাদিক মনোয়ারুল ইসলাম যে আড্ডার আয়োজন করেন তাতে শিকাগো থেকে আসা খ্যাতনামা শিক্ষাবিদ এবং সংবাদ ভাষ্যকার ডঃ আলী রীয়াজ, বিবিসির মাসুদ হাসান খান ছাড়াও অন্যান্যের ভেতর যোগ দেন মনজুর আহমেদ, সাইয়িদ মোহাম্মদ উল্লাহ, মুহম্মদ ফজলুর রহমান, ডাঃ ওয়াজেদ আলী খান, টাইম টিভির সিইও আবু তাহের, ,নাসিমুন নাহার নিনি, হাসানুজ্জামান হাসান, মিনহাজ আহমেদ, নিহার সিদ্দিকী সহ অনেকেই যোগ দেন।
এই যাত্রায় শেষ আড্ডাটি হয় ১৯ নভেম্বর জ্যাকসন হাইটসের মেজবান রেস্তোরায়। আমার আমন্ত্রনে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ভিজিটরস প্রোগ্রামে আসা সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম ছাড়াও আরও যোগ দেন ফারজানা রুপা,মনির হায়দার, পরসিয়া সুলতানা, নিহার সিদ্দিকী, হাসানুজ্জামান সাকি,  মিনহাজ আমেদ, মনিজা রহমান, আইরিন রহমান,, শাহীন সুলতানা চঞ্চলা সহ আরও অনেকে। আড্ডা শেষে আমি ও নিহার ভাই আগের পরিকল্পনা অনুযায়ী রোজিনা ইসলামকে নিয়ে যাই টাইম টিভিতে । আবু তাহের ভাই অপেক্ষায় ছিলেন। স্টুডিও রেডি কিন্তু তাহের ভাইয়ের অফিস রুমে আমাদের ম্যারাথন আড্ডা যেন অ্যার শেষ হতে চায়না।  একসময় ঢাকার পরই ছিলো লন্ডন- প্রবাসীদের আলাপ আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু । এখন এই সময়ে বলারই অপেক্ষা রাখেনা সেই অবস্থান দখল করে নিয়েছে নিউ ইয়র্ক। আরও স্পষ্ট করে বললে বলতে হয় আমাদের জ্যাকসন হাইটস।    bb3 bb7 bb8 bb9 bb111 bb112 bb113 bb114 bb115তাই আমাদের এই সব আড্ডা চলতেই থাকবে- টু বি কন্টিনিউড ।
Print Friendly, PDF & Email

Leave A Reply