ফাল্গুনের ফুল, ভালোবাসার ফুল

0 45

ফাল্গুন মানেই ফুল, ভালোবাসা দিবসও তাই। একুশে ফেব্রুয়ারিতে ফুল দিয়েই শ্রদ্ধা জানায় লাখ লাখ মানুষ। মধ্য ফেব্রুয়ারির আগে থেকেই তাই রাজধানীর ফুলের বাজার জমে উঠেছে। তবে বেশ কিছু অঞ্চলে কুয়াশা ও ভাইরাসের কারণে ফুলের উৎপাদন কম হওয়ায় কিছুটা প্রভাব পড়েছে বাজারে।

ভোরের আলো ফোটার আগেই বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা ফুলের সমারোহ ফুলের পাইকারি বাজার শাহবাগে। সারাবছরই জমজমাট থাকে এ বাজার। তবে ফেব্রুয়ারি মাসে আরো বেশি। ১৩ ফেব্রুয়ারি পহেলা ফাল্গুন আর তার পরের দিন ভ্যালেন্টাইন্স ডে। এরপর ২১ ফেব্রয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। অন্য সময়ের তুলনায় এ সময় ফুলের চাহিদা দ্বিগুণ হয় শাহবাগ ও আগারগাঁওয়ের ফুল বাজারে।

এবার দেশীয় গোলাপের কম উৎপাদন হওয়ায় ভালোবাসা দিবসের একেকটি গোলাপের দাম ৫০ থেকে ৬০ আর ভারতীয় ও চায়না গোলাপ ৮০ থেকে ১০০ টাকা। এছাড়া গ্লাডিওলাস ৪০ থেকে ৫০, রজনীগন্ধা ৩০, চন্দ্রমল্লিকা ৩০ এবং জারবেরা ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ বসন্তে বাসন্তী গাঁদা ও লাল গাঁদার কদর বেশি। এছাড়া পমপম, জিপসি, কসমস, ডালিয়া ও টিউলিপের চাহিদা রয়েছে সমানতালে। বিভিন্ন ধরনের ফুল দিয়ে সাজানো তোড়া বিক্রি হচ্ছে ৮০০ থেকে ১২০০ টাকায়।

বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির সভাপতি বাবুল প্রসাদ আশা করছেন, এ বছর আবহাওয়া প্রতিকূলে থাকলেও ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবসে কোটি টাকার ফুল বাণিজ্য হবে। বাইরের দেশ থেকে ফুল আমদানি বন্ধ করে দেশীয় ফুলের বাজারকে আরো সমৃদ্ধ করতে উদ্যোগ নেওয়ার অনুরোধও জানাচ্ছেন ফুল ব্যবসায়ীরা।

Print Friendly, PDF & Email

Leave A Reply