রাজধানীতে বিএনপির মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ, গ্রেফতার ৩০ আহত ১৫

0 27

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ‘বানোয়াট’ মামলায় সাজা প্রদানের প্রতিবাদ এবং অবিলম্বে তাঁর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে শনিবার রাজধানীতে দলের নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ বাধা দিয়েছে। গ্রেফতার করেছে ৩০ জনকে। পুলিশের লাঠিচার্জে ১৫-১৬ জন নেতাকর্মী আহত হন। নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে আগের দিনের মতো মিছিল বের করে বিএনপি। দুপুরের এই মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু এবং চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য জয়নুল আবদিন ফারুক।

নয়া পল্টন থেকে শুরু এই মিছিল ফকিরাপুলের কাছে গেলে পুলিশের ধাওয়ায় ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। সেখান থেকে ৮ জনকে পুলিশ আটক করে।

দুপুর দেড়টায় হাউজ বিল্ডিংয়ের গলি থেকে বিএনপি নেতা-কর্মীরা স্লোগান দিতে দিতে দৈনিক বাংলার কাছে আসে। সেখানে যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা মিছিলে যোগ দেন। মিছিলটি ফকিরাপুল পানি ট্যাংকের কাছে গেলে সেখানে হাজার খানেক নেতা-কর্মী এই মিছিলে যোগ দেন। তখন মিছিলের সামনে আসেন মির্জা আব্বাস, ফারুক ও বুলু। বিশাল এই মিছিলের সামনে ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল, হারুনুর রশীদ, আ ক ম মোজাম্মেলন হক প্রমুখ।

মিছিলটি পানির ট্যাংক অতিক্রম করে ২০ গজ পেরুনোর পর পুলিশ পেছন দিক থেকে ধাওয়া দেয়। পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করলে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এরপর সেখান থেকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান জিমিসহ ওলিউদ্দিন, জাহেদ ও রশিদ নামের কয়েকজন নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ। এদিকে বিজয়নগর এলাকায় বিএনপির নেতাকর্মীরা মিছিল বের করলে পুলিশ ধাওয়া দিয়ে লাঠিচার্জ করলে তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে যান। পরে ঘটনাস্থল থেকে বিএনপির কয়েকজনকে আটক করা হয়।

বিএনপির এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ৪০ জনের বেশী নেতাকর্মীকে মিছিল থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়া পুলিশের লাঠিচার্জে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মওলা শাহীনসহ ৫০ জনের অধিক নেতাকর্মী গুরুতরভাবে আহত হন।
গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে রয়েছেন:মহানগর দঃ বিএনপি’র সহ-সভাপতি নবীউল্লাহ নবী, মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান জিমি, ওলিউদ্দিন, তাহের, রাশেদ, জাহিদ, ৫২ নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা ফারুক, শ্যামপুর ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক সেন্টু মেম্বার, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ মৎস্যজীবী দলের যুগ্ম সম্পাদক স্বপন, স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় নেতা হারুন অর রশিদ হারুন, মুন্সিগঞ্জ জেলা মৎস্যজীবী দলের নেতা তাওলাদ হোসেন প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email

Leave A Reply