khabor.com, KHABOR.COM, khabor, news, bangladesh, shongbad, খবর, সংবাদ, বাংলাদেশ, বার্তা, বাংলা

দুবাইয়ে হুমায়ূন আহমেদকে স্মরণ করলো হিমু ও রূপা

93

লুৎফুর রহমান : বরেণ্য কথাসাহিত্যিক হুমুায়ূন আহমেদের জন্মদিন উপলক্ষে হিমু আর রূপার ভিন্ন আয়োজন ছিলো আমিরাতের দুবাইস্থ ক্রিকপার্কে। শুক্রবার দুপুরে এ ব্যতিক্রমী আয়োজন করেন সংস্কৃতিকর্মী জুলফিকার হায়দার খান, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা নওশের আলী ও প্রকৌশলী মঈনুল ইসলাম। এছাড়াও অনুষ্টান সফলে বাংলাদেশ কমিউনিটির সবাই সার্বিক সহযোগিতা করেছেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কনস্যূলেট দুবাইয়ের কনসাল জেনারেল এস বদিরুজ্জামান। তিনিও সব পুরুষের মতো হলদে রাঙা পাঞ্জাবী পরে এসেছিলেন, তাঁর সহধর্মিণীও রূপার নীল শাড়ীতে । কনসাল জেনারেল এ উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং প্রবাসী সমাজের মনন গঠনে এ ধরণের সৃজনশীল উদ্যোগের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন ।

অনুষ্ঠানের শিরোনাম ছিলো ‘যদি মন কাঁদে তুমি চলে এসো’। নিমিষের জন্য মরুভূমির পার্ক যেন হয়ে ওঠে নুহাশ পল্লীর মায়াময় আবহে অনিন্দ্য সুন্দর। পুরুষেরা হলুদ পান্জাবী আর মহিলারা নীল শাড়ি পরে আসেন। সবাই যেন একেকজন হিমু আর রূপা।

অনুষ্ঠানে চলে হুমায়ূন বন্দনা। বিশেষ করে চলে হিমু চরিত্রের সৃজনশীল পরিবেশনা। প্রথম পর্বে সঞ্চালক জুলফিকার হায়দার খান উপস্থিত প্রবাসীদের হুমায়ূন আহমদের কালজয়ী চরিত্র হিমু নিয়ে নানা প্রশ্ন করেন। যারা সঠিক উত্তর দিয়েছেন পুরস্কৃত হয়েছেন। এছাড়া বাচ্চারা হিমুর ছবি এঁকে আনে। তাদের মধ্যেও যারা ভাল এঁকেছে তাদের পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এরপর ‘যদি মন কাঁদে’ হৃদয়ছোঁয়া নৃত্যপরিবেশনা করেন নৃত্যশিল্পী তিসা সেন। ছড়াকার লুৎফুর রহমান পাঠ করেন হুমায়ূন আহমেদের নানা বই আর নাটকের নাম দিয়ে রচিত ছড়া।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা ক্যাপ্টেন সৈয়দ আবু আহাদ ও নারী উদ্যোক্তা গুলশান আরা। পরবাসের মাটিতেও স্বদেশ সন্ধানী এমন আয়োজনে মুগ্ধ প্রবাসীরা। বিশেষ করে প্রবাসে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মকে বাংলাদেশ চর্চায় অনুপ্রাণিত করতে এসব আলোজাগানিয়া কাজ ধারাাহিক রাখা দরকার বলে মনে করেন অনেকে।

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed.