khabor.com, KHABOR.COM, khabor, news, bangladesh, shongbad, খবর, সংবাদ, বাংলাদেশ, বার্তা, বাংলা

রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ান : রাষ্ট্রপতি

51

ঢাকা : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়াতে সকল ধর্মের মানুষের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। তিনি রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগ করতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর প্রতি আহ্বান জানান।

হিন্দু সম্প্রদায়ের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজা উপলক্ষে আজ রাজধানীতে রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনে বক্তৃতায় তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ান। এই কঠিন সময়ে তাদের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন।’সাম্প্রতিককালে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়নের কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, হিন্দুসহ রাখাইন রাজ্যের লাখ-লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, যারা রাখাইন রাজ্যে নিষ্ঠুর অত্যাচারের শিকার হয়েছেন।

আবদুল হামিদ বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের প্রতি আমাদের সহানুভূতিশীল হতে হবে। স্বদেশে তাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসন এবং তাদের নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় সকল জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থাকে এগিয়ে আসতে হবে।’দুর্গাপূজাকে বাংলাদেশে একটি ‘সার্বজনীন উৎসব’ অভিহিত করে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, বন্যার কারণে হাওড় এবং দেশের অন্যান্য এলাকায় অনেক হিন্দু এবছর দুর্গাপূজা উদযাপন করতে পারছেন না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি সম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে সব ধর্মের অনুসারিরা দীর্ঘদিন ধরে তাদের নিজ-নিজ ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপন করে আসছে। রাষ্ট্রপতি বলেন, এদেশে সবাই সমানভাবে ধর্মীয় উৎসব পালন করে থাকেন এবং এখানে কোনো ধরনের বৈষম্য ও সংঘাত নেই।

তিনি বলেন, ‘কিন্তু, মূল সমস্যাটি হচ্ছে, কিছু মানুষ ধর্মের মর্ম বোঝে না এবং এ কারণে সমগ্র মানবজাতিকে মূল্য দিতে হয়।রাষ্ট্রপতি বলেন, দেশ ও জনগণের কল্যাণে ধর্মীয় অথবা সমাজিক বিভাজনকারী এই অশুভ শক্তির হাত থেকে জাতিকে রক্ষা করতে হবে।

তিনি বলেন, দেশকে সমৃদ্ধির দিকে নিয়ে যেতে সবাইকে অবদান রাখতে হবে। সাম্প্রদায়িকতা, ধর্মীয় জঙ্গিবাদ, অসহিষ্ণুতা এবং মৌলবাদকে এড়িয়ে চলতে হবে।তিনি বলেন, সরকার দেশ থেকে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস নির্মূলে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাচ্ছে এবং ইতোমধ্যেই দেশবাসী এ ব্যাপারে সাফল্য প্রত্যক্ষ করছে।

এর আগে, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির পরিদর্শন করেন। সেখানে তিনি আরেকটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। রাষ্ট্রপতি মৌলবাদী ও জঙ্গিদের মোকাবেলায় জাতীয় ঐক্য ও সংহতি গড়ে তোলার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

রাষ্ট্রপতি ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির ও রামকৃষ্ণ মিশন পরিদর্শনকালে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন সিকদার, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, হাজী সেলিম এমপি, কাজী ফিরোজ রশিদ এমপি, সাবেক সংসদ সদস্য মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ ও রাষ্ট্রপতির সচিবগণ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed.