khabor.com, KHABOR.COM, khabor, news, bangladesh, shongbad, খবর, সংবাদ, বাংলাদেশ, বার্তা, বাংলা

শান্তিতে নোবেল পুরস্কার শেখ হাসিনারই প্রাপ্য

0 299

এনআরবি নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : ‘রোহিঙ্গা শরনার্র্থী সমস্যা অত্যন্ত দৃঢ়তা ও দক্ষতার সাথে সামাল দেয়ার জন্যে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার শেখ হাসিনারই প্রাপ্য’-এমন অভিমত পোষণ করলেন নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সমাবেশের বক্তারা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতিসংঘে আগমণ উপলক্ষে নিউইয়র্কে বিভিন্ন কর্মসূচির সমর্থনে ১২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাতে জ্যাকসন হাইটসে পালকি পার্টি সেন্টারে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ১৭ সেপ্টেম্বর অপরাহ্নে শেখ হাসিনাকে জেএফকে এয়ারপোর্টে বিপুল অভ্যর্থনা জানানো হবে। ১৯ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার অপরাহ্নে টাইমস স্কোয়ারে নাগরিক সংবর্ধনা জ্ঞাপন করা হবে। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দেবেন ২১ সেপ্টেম্বর অপরাহ্নে। সে সময় জাতিসংঘের সামনে শান্তি সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে। এসব কর্মসূচিকে সাফল্যমন্ডিত করতে গত সপ্তাহ থেকেই প্রতিদিন গড়ে ৩টি করে জনসংযোগ-প্রস্তুতি সমাবেশ হচ্ছে নিউইয়র্ক, নিউজার্সি, ফিলাডেলফিয়া, ওয়াশিংটন মেট্র, বস্টন, মিশিগান, লসএঞ্জেলেসসহ বিভিন্ন সিটিতে।

‘গত ৮ বছরই জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে এসেছেন শেখ হাসিনা। কিন্তু এবারের মত এত আলোড়ন সৃষ্টি হয়নি কখনো। এর কারণ হচ্ছে রোহিঙ্গা শরনার্থী সমস্যা অত্যন্ত দৃঢ়তার সাথে সামাল দেয়া। গোটাবিশ্ব অবাক বিস্ময়ে অবলোকন করছে শেখ হাসিনার এমন বিচক্ষণতাপূর্ণ নেতৃত্বকে’-এ অভিমত পোষণ করেন এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের চেয়ারম্যান এবং যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক নিজাম চৌধুরী। বিপুল করতালির মধ্যে নিজাম চৌধুরী উল্লেখ করেন, ‘মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন এবং আর্ত-পীরিতদের মধ্যে স্বস্তি সঞ্চারে যে দক্ষতাপূর্ণ নেতৃত্ব প্রদর্শন করে চলেছেন, তার যথাযথ মূল্যায়ন করা হলে শান্তিতে শেখ হাসিনারই নোবেল পুরস্কার প্রাপ্য।’

একই ধরনের প্রত্যাশা উচ্চারিত হয় সমাবেশের প্রধান অতিথি যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিকের বক্তব্যেও। ড. সিদ্দিক বলেন, ‘নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের সার্বিক কল্যাণে কাজ করছেন শেখ হাসিনা। তার এ কর্মের পরিধি অনেক আগেই বিস্তৃত হয়েছে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। এবার রোহিঙ্গা সমস্যাকে সঠিকভাবে হ্যান্ডেল করার মধ্য দিয়ে নিজের নেতৃত্বকে আরো মহিমান্বিত করেছেন। মানবতার জন্যে এমন নিবেদিতপ্রাণ মানুষেরই নোবেল পাওয়ার কথা।’

ড. সিদ্দিক এ সময় আরো বলেন, ‘শেখ হাসিনার সংবর্ধনা সমাবেশকে এযাবতকালের সেরা একটি সমাবেশে পরিণত করতে সকলের আন্তরিকতাপূর্ণ সহায়তার বিকল্প নেই। প্রবাসীদের মধ্যে যে আমেজ তৈরী হয়েছে, তাকে অটুট রাখতে হবে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এই জাগরণকে বিস্তৃত করতে হবে মূলধারার লোকজনের মধ্যেও। বাংলাদেশ যে সঠিকভাবে এগুচ্ছে, তা অবহিত করতে হবে আন্তর্জাতিক বন্ধুদের।’

মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, ‘জাতিসংঘের এবারের অধিবেশনে মধ্যমণি থাকবেন শেখ হাসিনা। সকলেই তার বিচক্ষণতাপূর্ণ নেতৃত্বের বিবরণী জানতে আগ্রহী। এসব বিবেচনায় আমাদেরকেও সোচ্চার থাকতে হবে শেখ হাসিনার প্রতিটি কর্মসূচিকে ব্যাপকভাবে সাফল্যমন্ডিত করার জন্যে।’

সমাবেশে নেতৃবৃন্দের মধ্যে আরো ছিলেন জাতীয় সংসদ সদস্য নাসিমা ফেরদৌস, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আকতার হোসেন, মাহবুবুর রহমান, সৈয়দ বসারত আলী, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ, যুগ্ম সম্পাদক আইরিন পারভিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ ফারুক আহমেদ, মহিউদ্দিন দেওয়ান, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মোজাহিদুল ইসলাম, উপ-দপ্তর সম্পাদক এম এ মালেক, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাসুদ হোসেন সিরাজি, যুগ্ম সম্পাদক নূরে আলম বাবু, আইন বিষয়ক সম্পাদক ও যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু প্রজন্মলীগের সভাপতি আলহাজ্ব কাদের মিয়া, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মোর্শেদা জামান, বাংলাদেশী-আমেরিকান ডেমক্র্যাটিক লীগের সভাপতি খোরশেদ খন্দকার, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ডা. মাসুদুল হাসান, নির্বাহী সদস্য শাহানারা রহমান প্রমুখ। যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরাও ছিলেন এ সমাবেশে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave A Reply


Hit Counter provided by shuttle service from lax