Share


ঋতুস্রাবকালীন যে অশুদ্ধি/পাপ ভর করেছিল তা থেকে মুক্তি পেতে গুল্ম দিয়ে শরীরে আঘাত করে শুদ্ধ হচ্ছেন নেপালি নারী

হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ নেপালে কথিত ‘চৌপদী’ প্রথার কারণে যুগ যুগ ধরে নিষ্পেষিত হয়ে আসছিল নারীরা। এ নিয়ে হিমালয় কন্যা নেপালের সর্বোচ্চ আদালতের রায়ও খুব একটা কাজে আসেনি।

ঋতুস্রাবকালীন নারীদের ঠাঁই হতো অস্বাস্থ্যকর, নির্জন কোনো ঘর কিংবা গরু রাখার ঘরে। বন্যপ্রাণীদের আক্রমণেও অনেককে মৃত্যুর মতো মর্মান্তিক পরিণতিও বরণ করতো হতো। সমাজের মূল শ্রেণি হতে ঋতুবতী নারীদের আলাদা করতেই চালু ছিল এই চৌপদী প্রথা।

গত বুধবার নেপালের সংসদে আইন পাশ হয় এই প্রথা নিষিদ্ধের বিষয়ে। শুধু তাই নয়, যৌতুক দিতে বাধ্য করা, নারীদের ওপর অ্যাসিড সন্ত্রাসে অভিযুক্তদের দণ্ড বিধানেও এদিন আইন পাশ করা হয়। যা কার্যকর হচ্ছে আগামী বছরের আগস্ট থেকে।

এ ধরনের কর্মকাণ্ডে যুক্ত ব্যক্তিদের তিন মাসের জেল, তিন হাজার নেপালি রুপি (২৯ মার্কিন ডলার) জরিমানার বিধান করা হয়েছে। শাস্তির পরিমাণ অল্প হলেও এমন বিধান রাখায় এমন ঘৃণ্য কর্মকাণ্ডের তীব্রতা কিছুটা হলেও কমবে- এমনটাই ধারণা সংশ্লিষ্টদের। সূত্র : এবিসি

Print Friendly, PDF & Email
Share
 
 

0 Comments

You can be the first one to leave a comment.

Leave a Comment

 




 

*

 
 
33Total Views
Share
Share

Hit Counter provided by shuttle service from lax