Share

চট্টগ্রাম: রাঙামাটিতে পাহাড়ধসে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে যাওয়ার পথে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়িবহরে হামলা হয়েছে। হামলায় মির্জা ফখরুলসহ দলটির কয়েকজন নেতা আহত হয়েছেন। হামলার পর তাঁরা রাঙামাটি না গিয়ে চট্টগ্রাম শহরে ফিরেছেন। হামলার নিন্দা জানিয়ে প্রতিবাদ কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি।আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা সদরের ইছাখালী এলাকায় চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কে এই হামলা হয় বলে জানান মির্জা ফখরুল।

মির্জা ফখরুলের গাড়িবহরে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আমিন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সদস্য মাহবুবুর রহমান প্রমুখ ছিলেন। তাঁরা আহত হয়েছেন বলছে বিএনপি। মির্জা ফখরুল বলেন, প্রায় ২০ থেকে ২৫ জন লোক অতর্কিতে তাঁর গাড়িবহরে লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা করে। বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমার গাড়ির কাচ ভেঙে গেছে। বহরের অন্য গাড়িও তছনছ করা হয়েছে। গাড়ির ভাঙা কাচ আমার শরীরে লেগেছে। আমাদের কয়েকজন নেতা আহত হয়েছেন।’

আমির খসরু বলেন, মির্জা ফখরুল হাতে আঘাত পেয়েছেন। রুহুল আমিন ঘাড়ে ব্যথা পেয়েছেন। মাহবুবুরের আঘাত মাথায়। তাঁর (আমির খসরু) হাত দিয়েও রক্ত বেরিয়েছে। রাঙ্গুনিয়া উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. মহসিন বলেন, মির্জা ফখরুলের বহরে ৫ টির মতো গাড়ি ছিল। ৪টিই ভাঙচুর করা হয়েছে। হামলায় অন্তত আটজন আহত হয়েছেন। ছাত্রলীগ-যুবলীগ এই হামলা চালিয়েছে।

আমির খসরু অভিযোগ করে বলেন, এলাকাটি আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদের। তাঁর লোকজনই এই হামলা করেছেন।অভিযোগের বিষয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘ঘটনাটি শুনেছি। বিএনপি নেতাদের গাড়িবহর দুজন পথচারীকে ধাক্কা দেয়। এরপর সেখানে উত্তেজিত লোকজন কিছু একটা করেছে।’ হাছান মাহমুদ বলেন, পাহাড়ধস হলো, এক সপ্তাহ আগে। আর বিএনপি নেতারা এখন সেখানে যাচ্ছিলেন। তাও আবার হামলার অজুহাত তুলে রাঙামাটি না গিয়ে ফিরে এসেছেন। এটা রহস্যজনক। বিষয়টিকে নাটক মনে হচ্ছে।

Print Friendly
Share
 
 

0 Comments

You can be the first one to leave a comment.

Leave a Comment

 




 

*

 
 
46Total Views
Share
Share

Hit Counter provided by shuttle service from lax