khabor.com, KHABOR.COM, khabor, news, bangladesh, shongbad, খবর, সংবাদ, বাংলাদেশ, বার্তা, বাংলা

ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’ আরো সামান্য উত্তর দিকে অগ্রসর হয়েছে

0 20

ঢাকা : উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’ আজ রাত ৯টায় আরো সামান্য উত্তর দিকে অগ্রসর হয়ে (১৯.০ ডিগ্রী উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯১.৩ ডিগ্রী পূর্ব দ্রাঘিমাংশ) এবং আরো শক্তি সঞ্চয় করে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে এবং বাংলাদেশ সমুদ্র বন্দর ও উপকূলের কাছাকাছি ধেয়ে আসছে।এটি আরো ঘণীভুত এবং আরো উত্তর দিকে অগ্রসর হয়ে আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল নাগাদ চট্টগ্রাম-কক্সবাজার উপকূল অতিক্রম করতে পারে। ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র অগ্রবর্তী অংশের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে।

প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৮৯ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১১৭ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়ের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর খুবই উত্তাল ও বিক্ষুব্ধ রয়েছে।এ জন্য চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরসমূহকে ১০ নম্বর পুনঃ ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর।ঘূর্ণিঝড়টি রাত ৯টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৬০ কিলোমিটার দক্ষিণে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ২৮০ কিলোমিটার দক্ষিণে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপূর্ব এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপূর্ব দিকে অবস্থান করছিল।

আবহাওয়াবিদ মো: আবদুর রহমান খান স্বাক্ষরিত বিশেষ বুলেটিন-১৩ এর মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।সেই সাথে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ১০ নম্বর পুনঃ ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।বিশেষ বুলেটিনে মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৮ নম্বর পুনঃ ৮ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।সেই সাথে উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদেরঅদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহও ৮ নম্বর পুনঃ ৮ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

প্রবল ঘূর্ণিঝড় ’মোরা’র প্রভাবে উপকূলীয় জেলা কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, ভোলা,পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নি¤œাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৪-৫ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।প্রবল ঘূর্ণিঝড় ’মোরা’ অতিক্রমকালে কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা,বরিশাল, পিরোজপুর জেলা সমূহ এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহে ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণসহ ঘন্টায় ৮৯ থেকে ১১৭ কিলোমিটার বেগে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র কারণে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার বিমানবন্দর সাময়িক বন্ধ

ঢাকা : বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (সিএএবি) আজ কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম বিমানবন্দর সাময়িককভাবে বন্ধ করে দিয়েছে।ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র কারণে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার রুটের আভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ রেখেছে সিএএবি।

সিএএবি কর্মকর্তারা জানান, কক্সবাজার বিমানবন্দরে ফ্লাইট পরিচালনা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পরবর্তী নিদের্শ না দেয়া পর্যন্ত এ বিমানবন্দর বন্ধ থাকবে এবং চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর আজ মধ্যরাত থেকে আগামীকাল দুপুর ২টা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।সিএএবি ফ্লাইট নিরাপত্তা ও পরিচালক জিয়াউল কবির জানান, ঘূর্ণিঝড়ের কারণে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave A Reply